Header Ads

  • Breaking News

    পর্যটনশিল্পে সহযোগিতা বাড়াতে চায় বাংলাদেশ-ভিয়েতনাম


    পর্যটন শিল্পে পারস্পারিক সহযোগী বাড়াতে আগ্রহী বাংলাদেশ ও ভিয়েতনাম। ভিয়েতনামের কোয়াং নিন প্রদেশের স্টান্ডিং ডেপুটি সেক্রেটারি দো থি হোয়াং এর সঙ্গে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকে এই আগ্রহের কথা জানানো হয়েছে।
    ভিয়েতনাম সফররত বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের প্রতিনিধি দল গতকাল শনিবার ভিয়েতনামের কোয়াং নিন প্রদেশের পর্যটন সিটি হা লং পরিদর্শন করেন। এ সময় স্পিকারের নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি দলকে অভ্যর্থনা জানান দো থি হোয়াং। এরপর দ্বি-পক্ষীয় সভায় তারা পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনা করেন। এছাড়া পর্যটন শিল্পে দু’দেশের মধ্যে পারস্পারিক সহযোগিতা ও  অভিজ্ঞতা বিনিময়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
    সভায় স্পিকার বলেন, পৃথিবীর সর্ববৃহৎ সমুদ্র সৈকতের অবস্থান বাংলাদেশে। পৃথিবীর সর্ববৃহৎ ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট সুন্দরবনের বড় অংশ বাংলাদেশে। এ ছাড়াও বাংলাদেশের পার্বত্য অঞ্চল প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের লীলাভূমি। দেশ-বিদেশের পর্যটকদের জন্য সকল ধরনের সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করে বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের প্রসার ঘটানো সম্ভব।  
    তিনি আরো বলেন, বর্তমান বিশ্বে পর্যটন একটি অন্যতম আয়ের উৎস। বিশ্বের যে দেশ পর্যটনশিল্পে যত উন্নতি করতে পেরেছে সে দেশ অর্থনৈতিকভাবে ততো লাভবান হয়েছে।
    স্পিকার বলেন, ভিয়েতনামের হা লং বে বিশ্ব পর্যটকদের জন্য আকর্ষনীয়। তিনি বাংলাদেশের অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট ঘিরে রিভার ক্রুজিং ব্যবস্থা গড়ে তোলার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
    এ সময় স্টান্ডিং ডেপুটি সেক্রেটারি দো থি হোয়াং বলেন, পর্যটন শিল্পে ভিয়েতনামের সাথে বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাধ্যমে দু’দেশের পর্যটনশিল্প সমৃদ্ধ হবে। বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকারের সফরের মাধ্যমে দু’দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরো সুদৃঢ় হবে।
    জাতীয় সংসদের প্রতিনিধি দলে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য ইমরান আহমেদ, পংকজ নাথ ও এ এম নাঈমুর রহমান এবং বাংলাদেশ সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. আবদুর রব হাওলাদার ।

    No comments

    Post Top Ad

    ad728

    Post Bottom Ad