Header Ads

  • Breaking News

    রিয়ালকে হারাল ইউনাইটেড

    Daily-sangbad-pratidin-football

    টাইব্রেকারে রিয়াল মাদ্রিদকে ২-১ গোলে পরাজিত করে ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নস কাপে জয়ের ধারা ধরে রেখেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা ক্লারা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটি নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে ড্র ছিল। এমনিতে তেমন কোনো গুরুত্ব না থাকলেও জয়টি নিশ্চিতভাবে উদ্দীপ্ত করবে ইউনাইটেডের খেলোয়াড়দের। কারণ সপ্তাহ দুয়েক পর উয়েফা সুপার কাপে মুখোমুখি হবে কোচ হোসে মরিনহো এবং জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। খেলায় মরিনহো আস্থা রেখেছিলেন ইংলিশ ফরোয়ার্ড অ্যান্থনী মার্শালের ওপর। দুই বছর আগে লুই ফন গলের অধীনে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে মার্শালের ইউনাইটেডের জার্সি গায়ে অভিষেক হয়েছিল। তবে গত মৌসুমে মরিনহোর অধীনে তার সময়টা খুব একটা ভালো কাটেনি। এমনও গুজব ছিল এবারের মৌসুমে তিনি দলবদল করে অন্যত্র চলে যাচ্ছেন। কিন্তু মার্শাল ঠিকই নিজের সেরাটা দিয়ে দলে টিকে থাকার আভাস দিলেন।


    বিরতির ঠিক আগে হেসে লিনগার্দের গোলে ইউনাইটেড এগিয়ে যায়। এই গোলের যোগানদাতা ছিলেন মার্শাল। যদিও পেনাল্টি শ্যুট আউটে ইউনাইটেডকে গোল উপহার দিতে ব্যর্থ হন এই তিনি। পরবর্তীতে হেনরিখ মাখিতারিয়ান ও ডেলে ব্লিন্ড গোল করে ইউনাইটেডের জয় নিশ্চিত করেন। এই নিয়ে প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতিতে যুক্তরাষ্ট্র সফরে চার ম্যাচেই জয় তুলে নিল মরিনহোর শিষ্যরা। ম্যাচ শেষে মরিনহো স্বীকার করেছেন মার্শালের যোগ্যতা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। মরিনহো বলেন, ‘অবশ্যই আমরা তার কাছ থেকে আরো বেশি ধারাবাহিক পারফরমেন্স চাই। আমি মনে করি আজকের দিনটা তার জন্য ইতিবাচক ছিল। এ কারণেই পুরো ৯০ মিনিট আমি তাকে দলে রেখেছি। মার্শাল নিজেও বিষয়টা বেশ উপভোগ করছেন। নিজেকে ম্যাচে ধরে রাখার চেষ্টা করেছেন। এই ধরনের প্রীতি ম্যাচে এটা খুবই জরুরি। এতে তার আত্মবিশ্বাসও বৃদ্ধি পাবে। 


    ম্যাচের শুরু থেকেই মার্শালের গতির কাছে প্রায়ই পরাস্ত হতে হয়েছে রিয়ালের মাঝ-মাঠে থাকা দানি কারভাহাল ও লুকা মডরিচকে। সাত মিনিটেই লিঙ্গার্দের ২৫ গজ দূরের শট দারুণ দক্ষতায় রক্ষা করেন কেইলর নাভাস। প্রাক-মৌসুমে প্রথম ম্যাচে রিয়াল অবশ্য নিজেদের প্রথম থেকে ম্যাচের আবহের সাথে ধরে রাখতে পারেনি। বিশেষ করে প্রথমার্ধ ছিল পুরোটাই ইউনাইটেডের দখলে। কিন্তু বিরতির পরে পুরো মূল একাদশ পরিবর্তন করে একেবারে তরুণ দল মাঠে নামিয়ে বেশ সফল ছিলেন মাদ্রিদ কোচ জিদান। ৬৯ মিনিটে পেনাল্টি থেকে দলের পক্ষে সমতা ফিরিয়েছেন ক্যাসেমিরো। ম্যাচ শেষে অবশ্য জিদান দলের পারফরমেন্সে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। যদিও আলভারো মোরাতা ক্লাবে ছেড়ে যাওয়ায় তার স্থানে নতুন কাউকে নেবার বিষয়ে সাবধানী মন্তব্য করেছেন মাদ্রিদ বস। তিনি বলেন, ‘এ সম্পর্কে আমি ক্লাব সভাপতির সাথে কথা বলেছি। তবে আমরা বর্তমানে ক্লাবে থাকা ২৮ খেলোয়াড়কে নিয়ে দারুণ খুশি। এখনো আমাদের হাতে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সময় রয়েছে।’ 


    নির্ধারিত সময়ে ম্যাচটি ড্র থাকায় পেনাল্টি শ্যুট আউটে কোনো দলই নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। দুই দলের নেয়া দশটি শ্যুটে গোল হয়েছে মাত্র তিনটি। রিয়ালের হয়ে শুধু মুগুয়েল কুয়েদাজা ইউনাইটেডের গোলরক্ষককে ফাঁকি দিতে পেরেছেন।

    No comments

    Post Top Ad

    ad728

    Post Bottom Ad