Header Ads

  • Breaking News

    কারিগরির ডিপ্লোমায় ভর্তির ফল প্রকাশ


    সরকারি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চার বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে অনলাইনে ভর্তির ফল প্রকাশ করা হয়েছে।কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট (www.bteb.gov.bd) থেকে শিক্ষার্থীরা ফলাফল সংগ্রহ করতে পারবেন।
    সচিবালয়ে মঙ্গলবার (১১ জুলাই) এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ আনুষ্ঠানিকভাবে ওয়েবসাইটে ভর্তির ফল প্রকাশ করেন।সংবাদ সম্মেলনে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. মোস্তাফিজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।
    শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমরা অনলাইনে দিয়ে দিয়েছি কারা কারা ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। কে কোথায় (ভর্তির সুযোগ) পাবেন। সরকারি মোট কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ১১৪টি। এ প্রতিষ্ঠানগুলোতে দুই শিফটে মোট আসন ৪৮ হাজার ১৫০টি। এই আসনগুলোর বিপরীতে মোট এক লাখ ৫৫ হাজার ৫৭৭ জন আবেদন করেছে।’
    ‘আবেদনকারীদের মধ্য থেকে আজকে ৪১ হাজার ৮০০ জনের ভর্তির ফল প্রকাশ করা হল। কিছু বাকি আছে তাদের দ্বিতীয়বারে দেওয়া হবে’ বলেন নাহিদ। আবেদনকারীদের মধ্যে পুরুষ এক লাখ ৩৯ হাজার ২৭৪ জন ও মহিলা ১৬ হাজার ৩০৩ জন বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী।
    কারিগরি বোর্ডের একজন কর্মকর্তা জানান, প্রথম ভর্তি নিশ্চয়ন ১২ জুলাই থেকে শুরু হয়ে ১৬ জুলাই পর্যন্ত চলবে। এরপর ‍দ্বিতীয় ভর্তি নিশ্চয়নের তারিখ ঘোষণা করা হবে। ক্লাস শুরু হবে আগামী ১ আগস্ট।
    শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ‘আবেদন করেছেন এক লাখ ৫৫ হাজার শিক্ষার্থী। বাকিরা কী পড়বেন না? বাকিদের পড়ার জন্য অনেক বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আছে। সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ৪৯টি আর বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সাড়ে ৪০০। অন্যদের ভর্তির জন্য প্রতিষ্ঠান কিন্তু আছে। ভর্তি হতে পারবে না তা নয়।’
    মেধাবী শিক্ষার্থীরাও কারিগরিতে পড়তে আসছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘এবার আবেদনকারীদের মধ্যে জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীদের সংখ্যা ৩ হাজার ৮০৯ জন এবং জিপিএ-৪ এর উপরে পেয়েছে এমন শিক্ষার্থী ৭৬ হাজার ৫৯৩ জন। অনলাইনে ভর্তিতে স্বচ্ছতা নিশ্চিত হয়েছে। কোন ছাত্র বৈষম্যের শিকার হবেন এমন সুযোগ আর নেই। ভর্তি হতে গিয়ে আর বিড়ম্বনার সুযোগ নেই।’
    কারিগরি শিক্ষার বিষয়টি ধীর ধীরে গুরুত্ব পাচ্ছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘প্রথম যখন দায়িত্ব নিলাম তখন মোট শিক্ষার্থীর ১ শতাংশ কারিগরি শিক্ষায় লেখাপড়া করত। এখন তা ১৪ শতাংশে নিয়ে আসতে পেরেছি। আমাদের লক্ষ্য ২০২০ সালের মধ্যে মোট শিক্ষার্থীর ২০ শতাংশকে এই ধারায় নিয়ে আসব। কারণ মানুষই আমাদের বড় সম্পদ। সম্পদে পরিণত করতে হলে তাদের দক্ষ করে তৈরি করতে হবে।’
    কারিগরি শিক্ষকদের প্রকল্পের আওতায় বিদেশে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে জানিয়ে নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য আছে কারিগরি শিক্ষকদের জন্য আলাদা প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট তৈরি করব। ইতোমধ্যে প্রাথমিক কাজ শুরু হয়ে গেছে।’

    No comments

    Post Top Ad

    ad728

    Post Bottom Ad