Header Ads

  • Breaking News

    দুই ‘গেম চেঞ্জার’ এবার একসঙ্গে


    দুই ‘গেম চেঞ্জার’ এবার এসে মিলেছে এক মোহনায়। বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান এবং বিপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি রংপুর রাইডার্সের মালিক সোহানা স্পোর্টস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাফওয়ান সোবহানের বক্তব্যের সারমর্ম অনেকটা তাই।
    যেমন তাঁদের ‘আইকন’ ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজা নিঃসন্দেহে একজন ‘গেম চেঞ্জার’। তাঁর নেতৃত্বগুণ এমনই অনুপ্রেরণাদায়ী যে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ঘরোয়া টি-টোয়েন্টির আগের চারটি আসরের তিনটিতেই চ্যাম্পিয়ন তাঁর দল। এবার তাঁর নতুন ঠিকানা রংপুর রাইডার্স যে গ্রুপের ছায়ায় অন্যভাবে নিজেদের মেলে ধরার স্বপ্ন দেখছে, সেই বসুন্ধরাকেও ‘গেম চেঞ্জার’ বললেন সাফওয়ান। খেলার মাঠ ও বাণিজ্যিক ভুবনের এই স্বাতন্ত্র্য দুই ‘গেম চেঞ্জার’ মিলে এবার বিপিএলের পঞ্চম আসরও রাঙানোর লক্ষ্যের কথা শোনা গেল সাফওয়ানের মুখে, ‘‘আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে আমরা আমাদের আইকন পেয়ে গেছি। সবাই তাঁকে ম্যাশ নামেই চেনে। আমরা বসুন্ধরা গ্রুপও সব সময়ই ‘গেম চেঞ্জার’। আর সেটি আমাদের বিচরণ আছে, এমন সব ক্ষেত্রেই। এই প্রথমবারের মতো আমরা বিপিএলে। আশা করি মাঠের খেলা দিয়েও আমরা অনেক কিছু বদলে দিতে পারব। ’’
    বদলে দেওয়ার লক্ষ্যে গতকাল দুপুরেই হাতে হাত মেলাল রংপুর রাইডার্স আর মাশরাফি। কথা পাকাপাকি হয়ে গিয়েছিল আগেই। বাকি ছিল আনুষ্ঠানিক ঘোষণা। বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের সম্মেলনকক্ষে সংবাদমাধ্যমকে সেটি ঘটা করে জানানোও হলো। জানানোর পর যা হওয়ার কথা তা-ই হলো। দল মালিক থেকে শুরু করে প্রধান নির্বাহী ও ম্যানেজার, সবার কণ্ঠেই মাশরাফি-বন্দনা। ম্যানেজার আনোয়ারুল ইকবাল খেলোয়াড় মাশরাফির বাইরের মাশরাফিকেও সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে তুলে ধরতে চাইলেন, ‘মানুষ যদি ভালো হয়, তাহলে সবই ভালো হয়। মাশরাফি বিন মর্তুজা শুধু ভালো ক্রিকেটারই নন, ভালো মানুষও। দলের জন্য জীবন দিয়ে খেলেন। আমরা শুধু একজন খেলোয়াড়কেই পাইনি, একজন ভালো মানুষকেও পেয়েছি। আশা করছি আমাদেরও সব ভালো হবে। মাশরাফিকে স্বাগতম। ’
    মাশরাফির নেতৃত্বে রংপুর রাইডার্সের ইমেজ পুনরুদ্ধারও দলটির অন্যতম চাওয়া। গত আসরে নানা বিতর্কে কখনো কখনো দলটিকে নাজেহাল হতে হয়েছে। এবার মালিকানার হাতবদলের সঙ্গে সঙ্গে ক্ষুণ্ন হওয়া ইমেজেও পরিবর্তনের ছোঁয়া লাগাতে চান কর্মকর্তারা। সে ক্ষেত্রেও মাশরাফি বিশাল ভূমিকা রাখতে পারবেন বলে আশা রংপুর রাইডার্সের প্রধান নির্বাহী ইশতিয়াক সাদেকের, ‘আশা করছি রংপুর রাইডার্সের হারানো ইমেজ আমরা মাশরাফির মাধ্যমে ফিরিয়ে আনতে পারব। ’ মাশরাফি দলে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবেন বলে আশা দলটির ‘মেন্টর’ নাজমুল আবেদীন ফাহিমেরও, ‘মাশরাফিকে পাওয়াটা অনেক বড় ব্যাপার। আশা করছি আমাদের দল ভালো খেলবে এবং সেরা দল হিসেবেই মেলে ধরবে নিজেদের। ’ যিনি এ কথা বললেন, তিনি বাংলাদেশের তারকা ক্রিকেটারদের অনেকেরই দুঃসময়ের ভরসা। ম্যাচের পর ম্যাচ রান পাচ্ছেন না কিংবা বোলিংয়ের ছন্দহীনতা ধরতে পারছেন না, ক্রিকেটাররা ছুটে যান তাঁদের ফাহিম স্যারের কাছে। সেই স্যারের অভিজ্ঞতাকেও রংপুর রাইডার্সের বড় পাওয়া মানছেন মাশরাফিও। এদিন তাঁকে দলটির অধিনায়কও ঘোষণার পর বলছিলেন, ‘আমরা সমস্যায় পড়লে ফাহিম স্যারের কাছে যাই। এবার শ্রদ্ধেয় সেই স্যারকেই রংপুর রাইডার্সে পাচ্ছি। আমাদের সঙ্গে মোহাম্মদ রফিক ভাইও (সাবেক বাঁহাতি স্পিনার) আছেন। টম মুডির মতো বিশ্বের অন্যতম সেরা কোচকেও আমরা পাচ্ছি। সব মিলিয়ে দারুণ ব্যাপার। আশা করছি বেশির ভাগ ম্যাচেই আমরা ভালো খেলব এবং রংপুরকে ভালো কিছু উপহার দিতে পারব। ’ 
    দলে যখন মাশরাফি, তখন শিরোপার চেয়ে কম কিছু উপহার হিসেবে নিশ্চয়ই আশা করে না রংপুর রাইডার্স। সেটি স্পষ্ট সাফওয়ান সোবহানের কথায়ও, ‘সবাই দল গড়ে জেতার জন্য। আমরাও তাই। অবশ্যই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্য থাকবে আমাদের। ’ শুরুতেই বড় লক্ষ্যের কথা বলে ফেললে আবার বাড়তি চাপও তৈরি হয়। কিন্তু এখানেও দল মালিকের আস্থার প্রতিশব্দ মাশরাফি, ‘মাশরাফি চাপ নিয়ে খেলতে পছন্দ করে। আমরা চাইব সেই চাপ জয় করে ভালো খেলবে রংপুর রাইডার্সও। ’ এই দলটির একটি স্লোগানও আছে, ‘জয়ের লড়াই’। সেই লড়াইয়ে সাফওয়ান জিততে চান এভাবেই, ‘‘আমরা চাই ‘ফেয়ার গেম অ্যান্ড উইন’। ’’ সেই সঙ্গে এও নিশ্চিত করলেন যে টিম ম্যানেজমেন্ট পূর্ণ স্বাধীনতাই ভোগ করবে, ‘মাঠে কোচ আর অধিনায়কই সব। আমরা বাইরে থেকে কারো নাম সুপারিশ করে ফোন করব, এমন কিছুই হবে না। এখানে সবই হবে পেশাদারি ভিত্তিতে। ’ সাফওয়ানের পাশে বসা মাশরাফি এই কথায় আরো বেশি আশ্বস্ত হয়েছেন নিঃসন্দেহে। কারণ গত মৌসুমে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স মালিকের দল গঠনে নাক গলানো নিয়ে মাশরাফির অসন্তোষের খবর তো গোপন থাকেনি। তাঁর দল বদলানোর নেপথ্যে এটিও অন্যতম কারণ। হাওয়া বদল করতে ‘গেম চেঞ্জার’ মাশরাফি তাই এবার রংপুরে। যাঁর ওপর অগাধ আস্থা বাণিজ্যিক ভুবনের ‘গেম চেঞ্জার’ বসুন্ধরারও!

    No comments

    Post Top Ad

    ad728

    Post Bottom Ad