Header Ads

  • Breaking News

    চিন্তা করে কথা বলবেন : প্রধান বিচারপতিকে আমু

    Daily_Sangbad_Pratidin_amir_hossain_amu.jpg
    শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু
    প্রধান বিচারপতির উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পর্যবেক্ষণে ‘দেশের বিরুদ্ধে’ যে কথা বলা হয়েছে তা এক্সপাঞ্জ (বাতিল) না করলে দেশের মানুষ এগিয়ে আসবে। ‘সংসদের বিরুদ্ধে’ কথা বলার আগে আপনার ভাবা উচিৎ ছিল। এই সংসদের রাষ্ট্রপতিই আপনাকে নিয়োগ দিয়েছে। আজকে সে দিকে চিন্তা রেখে ভবিষ্যতে কথা বলবেন।

    বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নারী সংসদ সদস্য সম্পর্কে অবমাননাকর বক্তব্যের প্রতিবাদে যুব মহিলা লীগ আয়োজিত এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
    আমির হোসেন আমু বলেন, আগেও বলেছি আজও বলছি, আমরা কিন্তু আজকের সাংসদ নই, আমরা সত্তর সাল থেকে সাংসদ, পাকিস্তান আমল থেকে। আমরা বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে সরকার গঠন করেছিলাম। সেই সরকার ঐক্যবদ্ধভাবে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালিত করেছে। এই দেশ স্বাধীন হয়েছে। এ ‘দেশের বিরুদ্ধে’ যে কথা বলেছেন তা প্রত্যাখ্যান করতে হবে, এক্সপাঞ্জ করতে হবে, যদি না হয় তাহলে দেশের মানুষ এগিয়ে আসবে।

    শিল্পমন্ত্রী বলেন, অন্য বিচারপতিদের মনে রাখা দরকার উনি (প্রধান বিচারপতি) যা চান তা হলো- তিনিই বিচারকদের একমাত্র দেবতা। তিনি (প্রধান বিচারপতি) যা বলবেন সেটাই মানতে হবে। সব ক্ষমতা তার হাতে থাকবে, এর বাইরে কিছু থাকবে না। আজকে সেই ব্যবস্থা আমরা বিচার বিভাগে হতে দিতে পারি না। প্রধান বিচারপতি রাষ্ট্রের ক্ষমতা নিয়ে নিতে চান। এসব ফাইজলামির একটা সীমা আছে। এসব ঔদ্ধত্য দেখানোর একটা সীমা আছে।

    আমু বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার, শেখ হাসিনা সরকার কোনো ঠুনকো দল নয়, কোনো সামরিক জান্তার পকেট থেকে এ দলের সৃষ্টি হয়নি। আজকে অনেক দল বিশেষ করে বিএনপি নেতারা শেখ হাসিনার বক্তব্যের সমালোচনা করছে। তারা তো করবেনই, তার কারণ তারা তো পাকিস্তানি প্রেমিক। বাংলাদেশে একটা কথা আছে ‘সব শিয়ালের এক রা’।

    তিনি আরও বলেন, প্রধান বিচারপতি পাকিস্তানের বিচার ব্যবস্থার সঙ্গে তুলনা করে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে যে ঔদ্ধত্য দেখিয়েছেন তা সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। তাকে ভুলে গেলে হবে না আজাকের যিনি প্রধানমন্ত্রী (শেখ হাসিনা) তিনি তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। তাকে নানাভাবে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে কিন্তু কোনোকিছুই দমিয়ে রাখতে পারে নাই। তিনি সবকিছুকে উপেক্ষা করে দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। আজকে তার উপর কথা বলার সাহস আপনাকে কে দিল? আজকে কী উদাহরণ দিয়ে ভীতি প্রদর্শন করছেন?

    প্রধান বিচারপতিকে উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, আজকে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার জন্য যারা মাঠে নেমেছে আপনি ইতোমধ্যে নিশ্চয়ই তাদের চিনতে পেরেছেন। তারা আপনার বন্ধু নয়, শত্রু।

    যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আকতারে সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক অপু উকিলের সঞ্চলনায় মানববন্ধরে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বক্তব্য রাখেন। এ ছাড়া যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় এবং ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের নেতাকর্মীরা এ সময় মানবন্ধনে উপস্থিত ছিলেন।

    অন্যদিকে, ষোড়শ সংশোধনীর বাতিলের রায় নিয়ে সৃষ্ট বিতর্ক অবসানে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগ দাবি করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেছেন।

    No comments

    Post Top Ad

    ad728

    Post Bottom Ad