Header Ads

  • Breaking News

    কর্মচারীদের ১১ দফা বাস্তবায়নের আশ্বাস রাসিক মেয়রের

    daily-sangbad-pratidin-rajsahi

    রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের (রাসিক) দৈনিক মজুরিভিত্তিক কর্মচারীদের ১১ দফা দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। শনিবার বিকেলে নগর ভবনের সিটি হল সভা কক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন করে মেয়র এ ঘোষণা দেন।
    সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছেন, কর্মচারীদের ১১ দফা দাবি নিয়ে নগর ভবনে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছিল। পরিস্থিতি সামাল দিতেই তিনি দাবি মেনে নিয়েছেন। এখন নগরীর উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের আবার গতি ফিরবে। এ সময় পর্যায়ক্রমে ওই ১১ দফা বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন মেয়র।
    মেয়র বলেন, বাইরের ইন্ধনে তাকে বেকায়দায় ফেলতে কর্মচারীরা আন্দোলন করছিলেন। তবে কে ইন্ধন দিচ্ছিলেন তা স্পষ্ট করে বলেননি মেয়র। তিনি বলেছেন, কে ইন্ধন দিচ্ছিলেন তা জনগণ বুঝতে পেরেছে, তিনিও পেরেছেন।
    নিজেদের ১১ দফা দাবি নিয়ে রাসিকের অস্থায়ী কর্মচারীরা গত ১২ জুন মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। ওই মানববন্ধনের পর গত ১৯ জুন নগর ভবনে তালা দিয়ে কর্মবিরতি কর্মসূচি পালন করা হয়। পরে ৯ জুলাই থেকে লাগাতার কর্মবিরতি পালন করা শুরু হয়। তালা ঝুলিয়ে দেয়া হয় নগর ভবনের প্রধান ফটক, গ্যারেজ ও রাসিক নিয়ন্ত্রিত শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানায়। এরপর ১২ জুলাই এ আন্দোলন স্থগিত করা হয়।
    ওদিন কর্মচারীরা নিজেদের দাবি আদায়ে মেয়র বুলবুলকে ৭ দিনের আল্টিমেটাম দেন। কিন্তু এই সময়ের মধ্যেও তাদের দাবি মানা হয়নি। তবে ভেতরে ভেতরে বিষয়টি নিয়ে আলাপ-আলোচনা চলছিল।
    সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার নগর ভবনে মেয়র বুলবুল এ বিষয়টি নিয়ে স্থায়ী কর্মচারী ও কাউন্সিলরদের সঙ্গে মতবিনিময় করছিলেন।
    ওই সভায় মেয়রের অনুসারী কাউন্সিলরদের সঙ্গে মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন অস্থায়ী কর্মচারীরা। এতে দুই নারী কাউন্সিলরসহ দুই পক্ষের অন্তত ছয়জন আহত হন। পরবর্তীতে শনিবার সকালে মেয়র আবার আন্দোলনরত কর্মচারীদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন। এরপরই বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করে তাদের দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা এলো।
    কর্মচারীদের দাবিগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি হলো- বেতন-ভাতা বৃদ্ধি, স্থায়ী কর্মচারীদের জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে পদোন্নতি, স্থায়ী কর্মচারীদের গৃহ নির্মাণের ব্যাংক ঋণের ব্যবস্থা করা, মৃত ও অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীদের পোষ্যদের চাকরি প্রদান, শোকজ বা চাকরিচ্যুত না করা, চাকরিচ্যুত শ্রমিকদের চাকরিতে নিয়োগ এবং মজুরিভিত্তিক কর্মচারীদের চাকরি স্থায়ীকরণ।
    সংবাদ সম্মেলনে মেয়র জানিয়েছেন, কর্মচারীদের বেতন ১৫ শতাংশ বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আর সিটি কর্পোরেশনের এক হাজার ৩০০ পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে চিকিৎসা বাবদ প্রতিদিন ১০ টাকা করে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।
    সংবাদ সম্মেলনে রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ আনোয়ারুল আজিম আজব, প্যানেল মেয়র-২ নুরুজ্জামান টিটু, নগর অবকাঠামো স্থায়ী কমিটির সভাপতি মনসুর রহমান, ১৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল আহমেদ, ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শাহজাহান আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

    No comments

    Post Top Ad

    ad728

    Post Bottom Ad